কেন আপনার ওয়ার্ডপ্রেস জানা উচিত?

ওয়ার্ডপ্রেস শব্দটি একজন ইন্টারনেট ব্যবহারকারী হিসেবে আপনি অবশ্যই শুনে থাকবেন। যদি না শুনেও থাকেন তাহলে বলবো আপনি নিজের অজান্তেই এমন অনেক ওয়েবসাইট ভিজিট করেছেন যা ওয়ার্ডপ্রেস দ্বারা তৈরি। বর্তমানে ওয়ার্ডপ্রেস হচ্ছে একটি জনপ্রিয় কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম বা সফটওয়্যার যা দিয়ে মানুষ ওয়েবসাইট তৈরি  ও পরিচালনা করে থাকে, কিন্তু অবাক হবেন শুনে ওয়ার্ডপ্রেস প্রথম পর্যায়ে একটি ফ্রি ব্লগিং প্লাটফর্ম হিসেবে যাত্রা শুরু করেছিল। আজ আমরা ওয়ার্ডপ্রেস এর আদ্যপ্রান্ত সম্পর্কে জানার চেষ্টা করবো।

প্রথমে জানব ওয়ার্ডপ্রেস কি?

ওয়ার্ডপ্রেস হলো একটি ওপেন-সোর্স সিএমএস (CMS) বা কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, যা পিএইচপি (PHP) প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ দ্বারা তৈরি করা হয়েছে। ওয়ার্ডপ্রেস GPLv2 এর অধীনে লাইসেন্স করা ওপেন-সোর্স সফটওয়্যার হওয়ার কারণে যেকেউ ওয়ার্ডপ্রেস বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারে। সারা বিশ্বের সকল ওয়েবসাইটের প্রায় ৪০ শতাংশ ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে তৈরী করা হয়েছে। শুধুমাত্র তাই নয় বিশ্বের অনেক নামী দামী কোম্পানির ওয়েবসাইট ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে তৈরী করা হয়েছে। যেমন-

টাইমস ম্যাগাজিন, সনি মিউজিক, টেকক্রাঞ্চ, TEDBLOG, Vogue, Yelp Blog, মাইক্রোসফট নিউজ ইত্যাদি।  

ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে কি ধরণের ওয়েবসাইট তৈরি করা যায়

ওয়ার্ডপ্রেস শুরুতে একটি ব্লগ তৈরির সাধারণ টুলস হিসেবে যাত্রা শুরু করলেও চাহিদার সাথে তাল মিলিয়ে ওয়ার্ডপ্রেস কার্যকারিতা অনেকগুন বৃদ্ধি পেয়েছে। য়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে যেকোনো ধরনের ওয়েবসাইট তৈরী করা সম্ভব। তবে এই ব্যাপারটি আরও সহজ করেছে ওয়ার্ডপ্রেস এর সাথে কানেক্ট থাকা অসংখ্য থিম ও বিভিন্ন প্লাগিন এর কারণে।

ওয়ার্ডপ্রেস শুধুমাত্র বিজনেস ওয়েবসাইট তৈরির জন্য কিংবা ব্লগ তৈরীতেই নয়, বরং ই-কমার্স সাইট তৈরীরও অন্যতম একটি  জনপ্রিয় মাধ্যম হয়ে উঠেছে। যেসকল সাইট তৈরি করা হচ্ছে  তা নিম্নরূপঃ

  • বিজনেস ওয়েবসাইট
  • ব্লগ 
  • ই-কমার্স স্টোর
  • পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট
  • রিজিউম ওয়েবসাইট
  • ফোরাম ওয়েবসাইট
  • সোশ্যাল নেটওয়ার্ক
  • মেম্বারশিপ সাইট

ওয়ার্ডপ্রেস জনপ্রিয়তা পাওয়ার কারণ

ওয়ার্ডপ্রেস জনপ্রিয়তা পাওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে এটি সহজলভ্য ও ফ্রি সফটওয়্যার। যেকেউ বিনামূল্যে ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করতে পারে এবং ওয়েবসাইট তৈরী করতে পারে। অন্যসব ওয়েবসাইট তৈরীর প্ল্যাটফর্ম এর সাথে তুলনা করলে দেখা যায় শুধুমাত্র হোস্টিং ও ডোমেইন কিনে ওয়ার্ডপ্রেস এর সাহায্যে খুব সহজেই অল্প খরচেই একটি ওয়েবসাইট তৈরী করা সম্ভব।

অন্যান্য সিএমএস প্ল্যাটফর্ম এর সাথে তুলনা করলে দেখা যাবে  যে ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করা সবচেয়ে সহজ। ওয়েবসাইট তৈরি বা  ম্যানেজমেন্ট সম্পর্কে কোনো ধারণা না থাকলেও ব্লগ লেখা হোক কিংবা পেজ তৈরী করা থেকে শুরু করে সকল কাজই ওয়ার্ডপ্রেসে করা বেশ সহজ।

ওয়ার্ডপ্রেস জনপ্রিয়তা পাওয়ার আরো একটি কারণ হচ্ছে থিম ডিজাইন আর ওয়ার্ডপ্রেস পুরোটাই প্রায় চলে বিভিন্ন থিম এর উপর। ওয়ার্ডপ্রেস এর ডিরেক্টরিতে সার্চ করলে আপনি অসংখ্য ফ্রি থিম পাবেন যা ব্যবহার করে আপনি যেকোনো ধরনের ওয়েবসাইট তৈরী করতে পারেন। আপনি চাইলে ফ্রি থিম এর পাশাপাশি থিমফরেস্ট এর মতো মার্কেটপ্লেসে অনেক পেইড থিমস যা ব্যবহার করে অনায়াসেই আপনি একটি সুন্দর ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। 

প্লাগ ইন ওয়ার্ডপ্রেস এর একটি কমন এলিমেন্ট যা ছাড়া ওয়ার্ডপ্রেস কল্পনাই করা যায় না। ওয়েবসাইট এর ফাংশনালিটি দিন দিন এতো বৃদ্ধি পেয়েছে যেগুলো কমপ্লিট করতে চাইলে ব্যবহার করতে হয় ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন। এগুলোকে অ্যাপ এর সাথে তুলনা করা যেতে পারে। মোবাইলে যেমন বিভিন্ন অ্যাপ আপনাকে বিভিন্ন সুবিধা দেয়, তেমনি ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিনও সাইটে বিভিন্ন ফিচার যুক্ত করে।

ফ্রীলান্সার হিসেবে কেন আপনি ওয়ার্ডপ্রেস শিখবেন

ওয়েব ডিজাইন অনেক বড় একটি ইন্ডাস্ট্রি। যদি আপনি কোডিং ছাড়া ওয়েব ডিজাইন শিখতে চান তাহলে ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে শুরু করতে পারেন। এই ইন্ডাস্ট্রি গ্রাফিক্স, ডিজিটাল মার্কেটিং এর সাথেও জড়িত। যদি আপনি শুধু ড্র্যাগ এন্ড ড্রপ এর ফাঙ্কশনালিটি বুঝতে পারেন তারপরেও আপনি অনেক কাজ পাবেন মার্কেটপ্লেসে। 

Leave a Reply