ডিজিটাল মার্কেটিং চ্যানেল

ইন্টারনেট মার্কেটিং করতে চাইলে প্রথমেই আপনাকে মার্কেটিং চ্যানেলগুলো সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা থাকতে হবে। বিশ্বে প্রায় 4.33 বিলিয়ন সক্রিয় ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছে, যাদের সামনে আপনার ব্র্যান্ডকে উপস্থাপন করার জন্য ভালো একটি সুযোগ। কিন্তু কখন কোন চ্যানেল আপনি ব্যবহার করবেন এবং কোন চ্যানেল আপনার অডিয়েন্স এর জন্য উপযোগী তা নিশ্চিত হতে হবে। তার আগে আমরা জেনে নেই ডিজিটাল মার্কেটিং কত ধরণের চ্যানেল আছে এবং মোস্ট পপুলার চ্যানেলগুলো কি। 

মার্কেটিং চ্যানেলগুলির ধরণ

এসইও (সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন): 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর জনপ্রিয় একটি স্ট্রাটেজি হলো সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন, মূলত গুগল চ্যানেল এর রিকোয়ারমেন্ট ফিলাপ করে যেকোন ওয়েবসাইট কে নির্দির্ষ্ট কীওয়ার্ড বা টপিকস এর ভিত্তিতে গুগল এর সার্চ রেজাল্ট পেজ প্রথম স্থানে নিয়ে আসা। এসইও ফান্ডামেন্টাল থেকে আমরা জানি যে এসইও স্ট্রাটেজি মূলত ৫টি স্টেপ এ কাজ করে।

  • কীওয়ার্ড রিসার্চ 
  • কনটেন্ট ক্রিয়েশন 
  • অন-পেজ অপ্টিমাইজেশন 
  • অফ-পেজ অপ্টিমাইজেশন
  • মেজারমেন্ট  

পিপিসি মার্কেটিং গুগল এডস   : 

পে পার ক্লিক এডভার্টাইজিং বেশ ইফেক্টিভ মার্কেটিং স্ট্রাটেজি যদি আপনি এর প্রপারলি ব্যবহার করতে জানেন। পিপিসি এডভার্টাইজিং এর বড় সুবিধা হলো কাস্টমার এর ইনটেন্ট অনুযায়ী সার্চ রেজাল্ট প্রদর্শন করে তাকে কাস্টমার এ পরিণত করা যায়। এছাড়াও গুগল এর ডিসপ্লে এডস, ইউটিউব এডস এর মাধ্যমে বিজ্ঞাপন চালিয়ে কোম্পানির প্রচার প্রচারণা করা হয়ে থাকে।

ইমেইল মার্কেটিং : 

ইমেইল মার্কেটিং সকল মার্কেটিং চ্যানেল এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ROI ফেরত প্রদান করে থাকে। কারণ হলো ইমেইল এর মাধ্যমে পূর্বের সকল কাস্টমারকে নতুন ফিচার, আকর্ষণীয় অফার, ডিসকাউন্ট ইত্যাদি ফলো আপ করে বিক্রয় বৃদ্ধি করা হয়ে থাকে, এবং এর রেসপন্স রেট খুবই ভালো। 

কয়েকটি জনপ্রিয় ইমেইল মার্কেটিং টুলস হলো-

  • Mailchip
  • SendinBlue
  • Hubspot
  • Omnisend
  • Drip
  • AWeber

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং : 

সোশ্যাল মিডিয়া আজ সবচেয়ে শক্তিশালী ইন্টারনেট মার্কেটিং চ্যানেলগুলির মধ্যে একটি। ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, ইউটিউব, টুইটার ইত্যাদির মতো প্ল্যাটফর্মগুলি গতিশীল যোগাযোগের জন্য একটি কমন প্লাটফর্ম। ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা তাদের বেশিরভাগ সময় এই অনলাইন স্পেসে ব্যয় করে। সুতরাং ব্র্যান্ডগুলি কাস্টমার এর চোখের সামনে থাকার সুযোগটি মিস না করে কার্যকরভাবে তাদের ব্র্যান্ডগুলিকে প্রচার করার সুযোগ নিয়ে থাকে।

ভিডিও মার্কেটিং : 

ভিডিও বিজ্ঞাপন হল সবচেয়ে বিনোদনমূলক এবং ইন্টারেক্টিভ অনলাইন মার্কেটিং চ্যানেলগুলির মধ্যে একটি। অনলাইন ডিসপ্লে বিজ্ঞাপন হিসাবে ভিডিও বিজ্ঞাপন চালানো হয়ে থাকে৷ সাধারণ ইউটিউব বেশ জনপ্রিয় এই ধরনের বিজ্ঞাপন চালাতে। একটি ভিডিও শুরুর আগে, চলাকালীন সময় অথবা পরে চালানো হয়। বিজ্ঞাপনটি দেখার পরে, দর্শক সাধারণত সেই পণ্য বা সার্ভিস কেনার জন্য অবগত হয়ে থাকে। 

Leave a Reply