You are currently viewing আপওয়ার্কে Hourly এবং Fixed কাজের মধ্যে পার্থক্য কি?

আপওয়ার্ক এ Hourly VS Fixed প্রাইস ওয়ার্ক

আপওয়ার্ক এ ক্লায়েন্ট সাধারণত ২ ধরণের কাজ পোস্ট করে থাকেন। একটি Hourly বা ঘন্টা চুক্তিতে কাজ করা এবং আর একটি Fixed প্রাইস এ কাজ করা। ক্লায়েন্ট তার প্রজেক্ট এর জন্য এই ২টি মেথডেই ফ্রীল্যান্সার হায়ার করে থাকেন। 

Hourly কন্ট্রাক্ট

ক্লায়েন্ট আপওয়ার্ক এ জব পোস্ট করার সময় Hourly Rate বেশিরভাগ সময় মেনশন করে থাকেন যেমন: মিনিমাম ২০$ – ম্যাক্সিমাম ৬০$ একটা রেঞ্জ ভ্যারিয়েবল সেট করে দিয়ে থাকেন। আবার অনেক সময় Hourly Rate  মেনশন করেন না। তবে একটা বিষয় হলো আপওয়ার্ক এর টার্মস এন্ড কন্ডিশন অনুযায়ী আপনি প্রতি ঘন্টায় সর্বনিম্ন ৩ ডলার এর নিচে কাজ করতে পারবেন না। আবার ক্লায়েন্ট এর সাথে আপনি আপনার Hourly Rate নিয়ে সমঝোতা করে কাজ করতে পারবেন। 

Fixed Price কন্ট্রাক্ট

আপওয়ার্ক এ জব পোস্ট করার সময় ক্লায়েন্ট Hourly Rate এর পরিবর্তে প্রজেক্ট বেইজ জব পোস্ট করে থাকে যেখানে প্রাইস মেনশন করা থাকে। যেমন: ম্যাগাজিন ডিজাইন ৫০০$। এখানে আপনি কাস্টমাইজ করে এপ্লিকেশন করতে পারবেন সেটা হতে হতে পারে ২৫০ ডলার এ আপনি প্রজেক্ট তাকে কমপ্লিট করে দিতে পারবেন। সেখানে আপনি মাইলস্টোন হিসেবেও কাজ এর প্রাইস ফিক্স করে ক্লায়েন্ট এর সাথে কাজ করতে পারবেন। ধরুন আপনি আপনি ম্যাগাজিন ডিজাইন এর কাজটি ২৫০ ডলার এ করবেন এবং আপনার ক্লায়েন্ট রাজি হয়েছে। তাকে আপনি এভাবেও প্রস্তাব দিতে পারবেন মাইলস্টোন হিসেবে। যেমন :

  1. মাইলস্টোন ১: ডিজাইন লেআউট ১০০ ডলার
  2. মাইলস্টোন ২: ডিজাইন প্রোটোটাইপ ১০০ ডলার
  3. মাইলস্টোন ৩: ফাইনাল রিভিউ ৫০ ডলার 

Billing প্রসেস

আপওয়ার্ক বিলিং প্রসেসটি কিভাবে কাজ করে তা আপনাদের জানা দরকার। যদি আপনি ফিক্সড প্রাইস এ কাজ করেন তাহলে আপনার মাইলস্টোন সাবমিট করার পর ক্লায়েন্ট ১৪ দিন সময় পাবে রিভিউ এবং এপ্রোভ করার। যখন ক্লায়েন্ট এপ্রোভ করবে আপওয়ার্ক ২-৫ দিনের মধ্যে ফান্ড রিলিজ করে দেয়।

আর যদি ঘন্টা চুক্তিতে কাজ চালিয়ে যান তাহলে আপনার দেশের টাইম অনুযায়ী রবিবার মিডনাইট পার হলে সোমবার সকালে আপনি আপনার প্রসেসিং বিলটা দেখতে পাবেন। ক্লায়েন্ট এখানেও রিভিউ করবেন তবে এটা আপওয়ার্ক প্রটেকশন করে থাকে। ক্লায়েন্ট না পেমেন্ট করলেও আপওয়ার্ক আপনাকে পেমেন্ট করে দিবে। 

Leave a Reply